গুগল ম্যাপের চমৎকার ৭ ব্যবহার

0
10

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক : লোকেশন খুঁজে বের করতে গুগল ম্যাপের ব্যবহার সবারই জানা। কিন্তু এই কাজের পাশাপাশি আরও কিছু চমৎকার ব্যবহার আছে, যা ম্যাপটি দিয়ে সহজে করা যায়।

দূরত্ব মাপার সুযোগ: নিজের অবস্থান থেকে যেকোনো স্থানের দূরত্ব মাপতে পারবেন খুব সহজে। এ জন্য যেখান থেকে দূরত্ব মাপতে চান প্রথমে সেই লোকেশনে ড্রপ পিন দিয়ে হোল্ড করতে হবে। তারপর ড্রপ পিন এ চাপ দিলে কতগুলো অপশন আসবে, সেখান থেকে  “Measure Distance” এ ক্লিক করলেই দূরত্ব মাপতে পারবেন।

যানজটের খোঁজ: যানজটের হালচাল জানাতে গুগল ম্যাপে আছে লাইভ ট্রাফিক আপডেট। এটি উন্নত বিশ্বে সেই ২০০৭ সাল থেকে চালু থাকলেও বাংলাদেশে চালু হয়েছে বছর দুই আগে।

এটি ব্যবহার করতে হলে আপনাকে ম্যাপের মেনু থেকে ‘রিয়েল টাইম ট্রাফিক’-এ ক্লিক করে ‘ট্রাফিক’ অপশনে গিয়ে ‘লাইভ ট্রাফিক’ থেকে ‘টিপিক্যাল ট্রাফিক’ করে নিতে হবে। ট্রাফিক অপশনটি চালু হলে ম্যাপে রাস্তার ওপরে সবুজ, হলুদ, কমলা ও লাল রং দেখতে পাবেন। সবুজ রং দেখা গেলে বুঝতে পারবেন সে রাস্তায় এখন জ্যাম নেই। কমলা রং দেখা গেলে মাঝারি জ্যাম আর লাল রং থাকলে বুঝে নিতে হবে কঠিন যানজট।

যানজটের খবর জানতে গুগল ম্যাপ ‘ক্রাউড সোর্সড ডেটা’ ব্যবহার করে। অর্থাৎ রাস্তায় যত মানুষ যানবাহনে চলাচল করছে, তাদের স্মার্টফোনে যদি লোকেশন সার্ভিস অন করা থাকে, তাহলে গুগল সেগুলো থেকে ট্রাফিকের ডেটা সংগ্রহ করে ইন্ডিকেটর তৈরি করে। এর মাধ্যমে গুগল রাস্তায় থাকা গাড়ির সংখ্যা, কত দ্রুত গাড়িগুলো চলছে, সেগুলো হিসাব করে জানিয়ে দেয় জ্যামের খবরাখবর।

কম খরচে লাইট মোড: কম ডেটায় ম্যাপ ব্যবহারের সুযোগ দিতে আছে গুগল লাইট। যেখানে ইন্টারনেট  খরচ অনেক  কম। “Google map lite” লিখে গুগলে সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন ভার্সনটি।

এরপর স্ক্রিনের ডান পাশে নিচের একটি লাইটনিং বাটন নিশ্চিত করবে যে আপনি লাইট মোডে আছেন। ফেইসবুকের যেমন রয়েছে ফেইসবুক লাইট, কিংবা অপেরা মিনি, ইউসি মিনি, সেরকম, গুগল ম্যাপেরও সহজ মাধ্যম হচ্ছে গুগল ম্যাপ লাইট।

সহজে খাবারের খোঁজ: লকডাউনের সময় আশপাশের হোটেল ও রেস্টুরেন্টের সার্চ পদ্ধতি আরও সহজ করতে নতুন ফিচার চালু করেছে গুগল ম্যাপ। এখন ম্যাপ ওপেন করলেই টেকআউট, ডেলিভারি, গ্যাস ও গ্রোসারিজ অপশনসহ অতিরিক্ত ক্যাটাগরি থেকে ২৫টি সেবার তথ্য পাওয়া যাচ্ছে।

অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস মোবাইল ব্যবহারকারীরা এই ফিচারের মাধ্যমে জেনে নিতে পারবেন তার বাসা থেকে কত দূরে কোন হোটেল, সেটি এখন খোলা কি না, কী কী মেন্যু আছে। ফিচারটি প্রথমে আমেরিকার ব্যবহারকারীদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। এরপর ধীরে ধীরে অন্য দেশেও আসে। বাংলাদেশেও আছে।

গুগল ম্যাপে আগে থেকে রেস্টুরেন্ট খোঁজার অপশন থাকলেও শর্টকাট ফিচার ছিল না। এখন টাইপ না করেই অপশন পাওয়া যাচ্ছে। নভেল করোনাভাইরাসের সময়ে মানুষের জীবনকে একটু সহজ করতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি।

যেভাবে খাবার খুঁজবেন : ম্যাপ অ্যাপ ওপেন করলেই ‘Takeout ’ এবং ‘Delivery’ অপশন পাবেন। যেকোনো একটি নির্বাচন করুন। আপনার এলাকায় কোন রেস্টুরেন্ট আছে সেটি চলে আসবে। কিছু কিছু রেস্টুরেন্ট থেকে গুগল ম্যাপের মাধ্যমে সরাসরি খাবার অর্ডার করতে পারবেন। কিছু রেস্টুরেন্ট আবার আপনাকে থার্ড পার্টি সরবরাহ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে লিংক করবে।

ইন্টারনেট ছাড়াই গুগল ম্যাপ: একবার একটি এলাকার ম্যাপ ডাউনলোড করে রাখলে কোনো রকম ইন্টারনেট সংযোগ ছাড়াই জেনে নেওয়া যাবে সেই এলাকার রাস্তাঘাট-সবকিছু। পরেরবার কোথাও বেড়াতে গেলে আপনি আগে থেকেই সেই এলাকার ম্যাপ ডাউনলোড করে রাখতে পারেন, যেখানেই যান কোথাও হারিয়ে যাওয়ার ভয় আর থাকবে না!

নতুন রাস্তা চেনা: গুগল ম্যাপের মাধ্যমে খুব সহজেই নতুন এলাকার রাস্তাঘাট অলিগলি চিনে ফেলতে পারবেন। গুগল ম্যাপ ব্যবহারে যেকোনো স্থান আপনি নিজে থেকে আপনার প্রয়োজনমতো খুঁজে নিতে পারবেন।

লোকাল গাইড: গুগলের রয়েছে লাখ লাখ ‘স্থানীয় গাইড’। স্থানীয় গাইডগুলো ফোরস্কয়ারের আপনাকে মনে করিয়ে দেবে এবং এটি গুগলের বেস মানচিত্রের ওপর ভিত্তি করে আরও ব্যক্তিকে তথ্য সংগ্রহের একটি স্তর সংগ্রহের চেষ্টা করছে। আপনি যখন গুগল মানচিত্রে আছেন, তখন মাই কন্ট্রিবিশনে যান এবং আপনি আপনার এলাকার বিভিন্ন স্থানে অনুসন্ধান করতে পারবেন। একটি পর্যালোচনা রেখে, কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার এবং একটি ছবি জমা দেওয়ার মাধ্যমে, আপনি এই অতিরিক্ত স্তরের ডেটাতে অবদান রাখতে পারেন। এই স্থানীয় জ্ঞান মানচিত্রকে একটি ক্যাফের ভাইবমতো জিনিস জানতে সাহায্য করে, একটি হোটেলে পার্কিং আছে কি না বা একটি রেস্টুরেন্ট বিকল্প আছে কি না, জানতে সাহায্য করে। অবদানগুলোর জন্য ফিরতিতে, ব্যবহারকারীরা গুগল ড্রাইভের বর্ধিত সঞ্চয়, যেমন পুরস্কার অর্জন করতে পারেন।